banglanewspaper

গণহারে ফেল করানোর অভিযোগে রাজধানীর নীলক্ষেত মোড় অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা। ভালো পরীক্ষা দিয়েও গণহারে ফেল করানোর অভিযোগ তুলেছেন তাঁরা।

আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে নীলক্ষেত মোড়ে অবস্থান নেন ২০১৭-১৮ সেশনের শিক্ষার্থীরা। এর ফলে নিউমার্কেট এলাকায় যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

এ সময় শিক্ষার্থীরা পাঁচ দফা দাবি তুলে ধরেন। তাঁদের দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে—ঢাবির সব নোটিশ স্পষ্টভাবে দেওয়া ও কলেজে পৌঁছানো, খাতার মূল্যায়ন সাত কলেজের শিক্ষকদের করা, পয়েন্ট নীতি বাতিল করে ইমপ্রুভ সিস্টেম চালু করা, খাতার পুনর্মূল্যায়ন ও ইনকোর্স রেজাল্ট প্রকাশ করে দেখানো।

এদিকে ইডেন কলেজের অর্থনীতি বিভাগের ২০১৭-১৮ সেশনের শিক্ষার্থীরা ডিপার্টমেন্টে তালা দিয়ে ক্লাস, ইনকোর্স পরীক্ষা বর্জন করেছে।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, ভালো পরীক্ষা দিয়েও গণহারে ফেল করেছেন তাঁরা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম অনুযায়ী সিজিপিএ ২-এর কম পেলে পরবর্তী বর্ষে শিক্ষার্থীকে উন্নীত করা হয় না। কিন্তু শিক্ষার্থীদের দাবি, এ ধরনের কোনো নোটিশ আগে জানানো হয়নি।

ইডেন মহিলা কলেজের ২০১৭-১৮ সেশনের শিক্ষার্থী মরিয়ম আক্তার জানান, কোনোরকম নোটিশ ছাড়া হঠাৎ এই নিয়ম কার্যকর করায় বিড়ম্বনায় পড়েছেন তাঁরা। এ নিয়ম কার্যকরের ফলে অনেক শিক্ষার্থী দ্বিতীয় বর্ষে উত্তীর্ণ হতে পারছেন না।

তিনি বলেন, ‘স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের ইতিহাস একটি সহজ সাবজেক্ট। এ বিষয়ে গণহারে ফেল মেনে নেওয়া যায় না। আর সিজিপিএ ২-এর কম পেলে নট প্রমোটেড, এ বিষয়ে আগে থেকে কিছুই আমাদের জানানো হয়নি। আমরা এর সমাধান চাই।’

দাবি মেনে নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থী সবুজ বলেন, ‘দাবি না মানলে আমরা আমাদের কর্মসূচি চালিয়ে যাব।’ তিনি আরো বলেন, ‘অধিভুক্তের পর থেকে সবকিছুর জন্যই বারবার আন্দোলন করা লাগছে। আমরা কি পড়াশোনা করতে আসছি নাকি আন্দোলন করতে আসছি?’