banglanewspaper

বিশ্ব ক্রিকেটের বড় নাম দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স। গত বছর মার্চে আন্তজার্তিক ক্রিকেট ছাড়ার পর থেকে ফ্র্যাঞ্চাইজি বেশ আধিপত্য তার। গত এক যুগের ক্রিকেট মাতানো ভিলিয়ার্স এবারও প্রথম বিপিএল খেলতে বাংলাদেশে এসেছেন। আর প্রথমবার বাংলাদেশের টুর্নামেন্টটির অংশ হতে পেরে আনন্দিত ডি ভিলিয়ার্স।

বিপিএল খেলতে বৃহস্পতিবার বাংলাদেশে পা রাখেন ডি ভিলিয়ার্স। ঢাকায় পা রেখেই রংপুর রাইডার্সে যোগ দিতে হেলিকপ্টারে উড়াল দেন সিলেটে। এসেই পরদিন দলের সঙ্গে অনুশীলনে নেমে পড়েন তিনি। শুক্রবার সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে অনুশীলন শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন প্রথমবার বিপিএল খেলতে আসা ভিলিয়ার্স।

এই সময় বাংলাদেশের টুর্নামেন্টটির অংশ হয়ে নিজের আনন্দের কথা জানান ভিলিয়ার্স। তিনি বলেন,‘বিপিএল সম্পর্কে খুব ভালো শুনেছি। আইপিএলের সতীর্থরা জানিয়েছে, টুনামেন্টটি গুনগতমানেন এবং অসাধারণ। তাছাড়া টুনামেন্টটি প্রতি বছরই শক্তিশালী হচ্ছে। চলতি বছর এই টুনামেন্টটির অংশ হতে পেরে আমি খুব আনন্দিত।’ 

বাংলাদেশের উইকেট মেরে খেলা ভিলিয়ার্সের জন্য বেশ চ্যালেঞ্জিং। তবুও উইকেট নিয়ে আপত্তি নেই সাবেক এই প্রোটিয়া অধিনায়কের। তার মতে,‘কিছু উইকেটে হয়তো খানিকটা টার্ন থাকে। আমার তাতে আপত্তি নেই। টার্নিং উইকেটে খেলা আমি সবসময়ই উপভোগ করেছি। পাশাপাশি ভালো উইকেটেও (ব্যাটিংয়ের জন্য) তো পাওয়া যায়। সিলেটের বিপক্ষে আমাদের শেষ ম্যাচটি আমি দেখেছি। উইকেট সেই ম্যাচে ভালোই ছিল। আশা করি কালকেও(শনিবার) তেমনই থাকবে।’

ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন রংপুর রাইডার্স এবারের আসরে খুব একটা ভালো অবস্থায় নেই। ইতিমধ্যে ছয়টি ম্যাচ খেলেছে মাশরাফির দল। যার মধ্যে কেবল জয়ের দেখা পেয়েছে দুটিতে। নকআউট যেতে বাকি ম্যাচ গুলোতে জিততেই হবে। তবে দলের করুণ অবস্থাতেও রংপুরকে নিয়ে আশাবদি ভিলিয়ার্স। তার কথায়,‘আশা করি কালকে প্রথম ম্যাচ খেলব, যদি একাদশে জায়গা পাই।

নামগুলির দিকে তাকালেই দেখা যায়, আমাদের স্কোয়াড দুর্দান্ত। খুব ব্যালান্সড দল। রংপুর রাইডার্সের অতীত সাফল্যের কথাও আমি জানি। প্রাথমিক পর্বের শেষ ছয় ম্যাচের জন্য একটু গতি খুঁজে পেতে হবে আমাদের। আশা করি আমরা নকআউট পর্বে খেলতে পারব।’

ডি ভিলিয়ার্সের সঙ্গে রংপুরের প্রাথমিক চুক্তি ছয় ম্যাচের জন্য। দল সেরা চারে জায়গা করে নিলে ডি ভিলিয়ার্সকে রেখে দেওয়ার চেষ্টা করা হবে বলে জানিয়েছে রংপুর।