banglanewspaper

২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত জোট ক্ষমতায় যাওয়ার পর ধর্ষণের শিকার সেই পূর্ণিমা রানী শীল এবার একাদশ সংসদে সংরক্ষিত আসনের সদস্য হতে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। 

মঙ্গলবার (১৫ জানুয়ারি) ক্ষমতাসীন দলের মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরুর দিনে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে গিয়ে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন তিনি।

২০০১ সালের ১ অক্টোবর অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াত নেতৃত্বাধীন তৎকালীন চার দলীয় জোট ক্ষমতায় আসার ৭ দিনের মাথায় ৮ অক্টোবর নিজ বাড়িতে গণধর্ষণের শিকার হন দশম শ্রেণির ছাত্রী পূর্ণিমা। তিনি সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া থানার দেলয়া গ্রামের অনিল কুমার শীলের ছোট মেয়ে। এক পর্যায়ে অনেকটা বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েন পূর্ণিমা। 

২০১১ সালের ৪ মে এই ধর্ষণ মামলায় ১১ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও প্রত্যেককে এক লাখ টাকা করে জরিমানা করে আদালত।

এর পর সেই পূর্ণিমাকে গেল বছর তৎকালীন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম তার ব্যক্তিগত কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ দেন।