banglanewspaper

এম.পলাশ শরীফ, বাগেরহাট: বাগেরহাট জেলার চিতলমারীতে আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার জন্য দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের সম্ভাব্য  প্রার্থীরা। 

এবার দলীয় মনোনয়ন দেওয়ার ঘোষণায় ভোটারদের কাছে না গিয়ে অনেক প্রার্থী এখন দলীয় সবুজ সংকেত পেতে ধরনা দিচ্ছেন থানা, জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে। অনেকে আবার ছুটছেন ভোটারদের দ্বারপ্রান্তে। আওয়ামী লীগের দলীয় টিকেট পাওয়ার জন্য তারা নেতাদের সাথে ব্যস্তসময় পার করছেন। বর্তমানে প্রার্থীদের চাইতে ভোটারদের মধ্যে বেশী ল্য করা যাচ্ছে ভোটের আমেজ। হাট-বাজার ও পাড়ার চায়ের দোকান গুলোতে চলছে প্রার্থীদের নিয়ে জল্পনা-কল্পনা। 

সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে আলোচনায় রয়েছেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান অশোক কুমার বড়াল, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পীযূষ কান্তি রায়, উপজেলা পরিষদ প্যানেল চেয়ারম্যান মোঃ রাশেদ শেখ, জেলা পরিষদ সদস্য আলহাজ্ব মোহন আলী বিশ্বাস, আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সদস্য এ্যাড. শম্ভুনাথ রায়, সুলতানা মল্লিক, সাবেক বড়বাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান ওয়াহিদুজ্জামান পান্না, চিতলমারী উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক মোঃ শেখ নজরুল ইসলাম, সাবেক ভারপ্রাপ্ত উপজেলা চেয়ারম্যান ফ্রান্স প্রবাসী নান্নু শেখ।

উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে মনোনয়ন প্রত্যাশী সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান সাহেব আলী ফরাজী, চিতলমারী উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক মোঃ মাহাতাবুজ্জামান, শেরে বাংলা কলেজের সাবেক এজিএস ও যুবলীগ নেতা মিলন কান্তি বাড়ৈ, শেরে বাংলা কলেজের সাবেক ভিপি রাজু আহমেদ মিরান, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আনন্দ লাল দত্ত, অলিপ সাহা কালা, উপজেলা কৃষক লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক নাজমুল হক টিপু ও যুবলীগ নেতা নাইমুল ইসলাম খান নোমান, আলোচনায় রয়েছেন।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে আলোচনায় রয়েছেন সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুব মহিলালীগের সভাপতি শিবানী বিশ্বাস, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী হেলেনা পারভীন ও যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেরা কামাল স্বপ্না।

প্রার্থী মনোনয়নের ব্যাপারে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পীযূষ কান্তি রায় জানান, দলীয় হাই কমান্ডারের নির্দেশ ক্রমেই প্রার্থীদের দলীয় মনোনয়ন প্রদান করা হবে। তিনি আরও জানান, মনোনয়নের ক্ষেত্র দলের জন্য নিবেদিত প্রাণ ও ত্যাগীরা প্রাধান্য পাবেন।

তবে চিতলমারী উপজেলা নির্বাচন অফিসার মোঃ আব্দুল মজিদ বলেন, এ উপজেলার ৭ টি ইউনিয়নে ২৯ ভোট কেন্দ্র। ভোটার ১ লাখ ১ হাজার ২২৩ জন। তিনি আরও জানান, ইসি থেকে উপজেলা নির্বাচন সংক্রান্ত বিভিন্ন তথ্য চাওয়া হয়েছে। সেগুলো ঢাকায় পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।