banglanewspaper

মালয়েশিয়ার সীমান্তবর্তী এলাকা জোহরের কোতা তিংগী নামক জায়গায় মালবাহী জাহাজ ডুবির ঘটনা ঘটেছে। এতে এক বাংলাদেশি ও এক চিনা নাগরিক নিহত হয়েছেন। নিখোঁজ রয়েছে আরও এক বাংলাদেশি।

দেশটির জোহর মালয়েশিয়ার মেরিটাইম এনফোর্সমেন্ট এজেন্সির (এমএমইএ) পরিচালক ফার্স্ট অ্যাডমিরাল মেরিটাইম আমিনউদ্দিন আব্দুল রশীদ জানিয়েছেন, মঙ্গলবার (২৫ ডিসেম্বর) দুপুর ২টার সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত হওয়া দুইজনের মরদেহ ঘটনার দিন সন্ধ্যা ৭টা ৪৫ মিনিটে উদ্ধার করে এমএমইএ।

বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে আব্দুল রশীদ বলেন, ‘নিখোঁজ হওয়া বাংলাদেশি ক্রু সদস্য জাহাজে আটকা পড়েছেন এমন সন্দেহে তৃতীয় দিনের মতো আমরা সন্ধান চালিয়েছি। টিআইআর এলাকাটি তিমুর তানজুং এবং তানজুং সেপাঙ্গের জলের মধ্যে ১২০ বর্গ নটিক্যাল মাইল এলাকা নিয়ে বিস্তৃত। ফায়ার অ্যান্ড রেসকিউ বিভাগের পাশাপাশি তানজুং সেপাং এবং তানজুং পেনওয়ারের প্যান্টাই তানজুং পাংগাইয়ের উপকূলীয় এলাকায়ও অনুসন্ধানের চেষ্টা করা হবে।

দুর্ঘটনার বিষয়ে ৩০ বছর বয়সী বাংলাদেশি ক্যাপ্টেন মিজাম উল হক বলেন, ঘটনাটি তাদের কাঙ্ক্ষিত গন্তব্যের খুব কাছাকাছি ঘটেছে।

ক্যাপ্টেন বলেন- ‘গন্তব্যে ১৪ দশমিক ৪ কি.মি. পথ বাকি থাকতেই জাহাজের জেনারেটর শক্তি হারিয়ে ফেলে। যে কারণে, আমি জাহাজের স্টিয়ারিং নিয়ন্ত্রণ করতে পারিনি। চার থেকে পাঁচ মিটার উচ্চ শক্তিশালী ঢেউগুলো বিভিন্ন দিক থেকে জাহাজে আঘাত হানছিল। ফলে জাহাজটি আরও দূরে সরে যায়।

নিজাম আরও বলেন, ‘পানি জাহাজে প্রবেশ করেছিল এবং আমরা আর নিয়ন্ত্রণ করতে পারিনি। আমি চিৎকার করে ক্রুদের বললাম জাহাজ থেকে সরে যেতে।

তথ্য মতে, মালবাহী এ জাহাজটিতে মোট নয়জন ক্রু সদস্য ছিলেন। তাদের ছয়জনের প্রাণ বাঁচলেও দুইজনের প্রাণনাশ হয়েছে এবং অপর একজনের সন্ধ্যান তৃতীয় দিনেও পাওয়া যায়নি।