banglanewspaper

হিমালয়কন্যা খ্যাত উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ে হঠাৎ বৃদ্ধি পেয়েছে শীত। বিভিন্ন এলাকায় মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বেয়ে চলেছে। বৃহস্পতিবার সকালে জেলায় সর্বনিম্ন ৭ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করেছে তেঁতুলিয়া আবহাওয়া অফিস।

গত বছর একই সময় সর্বনিম্ন ১৩ দশমিক ০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। হঠাৎ শীতের প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়ায় দুর্ভোগে পড়েছেন কৃষি শ্রমিকসহ খেটে খাওয়া মানুষ।

চলতি শীত মৌসুমে নভেম্বরের শুরু থেকে তেঁতুলিয়া উপজেলাসহ বিভিন্ন এলাকার তাপমাত্রা কমতে শুরু করে। গত তিনদিনে তেঁতুলিয়া এবং আশপাশের এলাকায় তাপমাত্রা ৮ থেকে ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে উঠানামা করছিল।

বুধবার তেঁতুলিয়ার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল ৮ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বৃহস্পতিবার সকালে সর্বনিম্ন ৭ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়।

উত্তরের হিমেল বাতাসের সঙ্গে রাতভর ঝড়তে থাকা কুয়াশা থাকছে সকাল পর্যন্ত। প্রতিদিন সকাল ৮টার মধ্যে সূর্যের মুখ দেখা গেলেও দিনভর কনকনে শীত অনুভূত হয়। শিরশির বাতাসে দুর্ভোগে পড়েছেন মানুষ।

সদর উপজেলার হাড়িভাসা ইউনিয়নের কৃষি শ্রমিক সফিজুল ইসলাম বলেন, হঠাৎ করেই ঠান্ডা বেড়ে গেছে। আমাদের প্রতিদিন সকাল সকাল খেতে কাজ শুরু করতে হয়। শীতের কারণে জমিতে ঠিকমত কাজ করতে পারছি না।

তেঁতুলিয়া আবহাওয়া অফিসের পর্যবেক্ষক মো. সামিউজ্জামান বলেন, বৃহস্পতিবার সকালে ৭ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। গত বছর আজকের দিনে ১৩ দশমিক ০ ডিগ্রি সেলসিয়াস সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ড রয়েছে। সে হিসাবে আজকের দিনে এটি সর্বনিম্ন তাপমাত্রার নতুন রেকর্ড।