banglanewspaper

যবিপ্রবি প্রতিনিধি : মহান স্বাধীনতাযুদ্ধে গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকার স্বীকৃতি স্বরূপ যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্মাণাধীন দ্বিতীয় ছাত্রী হলের নাম বীরপ্রতীক তারামন বিবির নামে নামকরণ করা হয়েছে। একইসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় একাডেমিক ভবনের নাম প্রখ্যাত বিজ্ঞানী স্যার জগদীশ চন্দ্র বসুর নামে, চিকিৎসা কেন্দ্রের নাম প্রখ্যাত শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. এম আর খানের নামে এবং তৃতীয় ছাত্র হলের (প্রস্তাবিত) নাম প্রখ্যাত চিত্রশিল্পী এস এম সুলতানের নামে নামকরণের সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে।

শনিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সম্মেলন কক্ষে যবিপ্রবির সর্বোচ্চ নীতি-নির্ধারণী ফোরাম রিজেন্ট বোর্ডের ৫২তম সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বর্তমানে যবিপ্রবিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব একাডেমিক ভবন, মাইকেল মধুসূদন দত্ত কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার কাম একাডেমিক ভবন, শিক্ষক-কর্মকর্তাদের জন্য কপোতাক্ষ টাওয়ার ও ভৈরব ডরমিটরি রয়েছে। এ ছাড়া মুনশী মোহাম্মদ মেহেরুল্লাহ নামের দ্বিতীয় ছাত্র হল, বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ পুত্রের নামে শেখ রাসেল জিমনেসিয়াম নির্মাণাধীন রয়েছে। 

এ ছাড়া রিজেন্ট বোর্ডের ৫২তম সভায় বিভিন্ন বিভাগ ও দপ্তরে নিয়োগ চূড়ান্তকরণ, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণার পরিবেশ সমুন্নত রাখতে বিভিন্ন বিষয়ে নিয়ে বিস্তারিত আলাপ-আলোচনা হয়। রিজেন্ট বোর্ডের নতুন সদস্য মনোনীত হওয়ায় অধ্যাপক ড. মো: আনিছুর রহমান, অধ্যাপক ড. বিপ্লব কুমার বিশ্বাস, অধ্যাপক ড. মো: ইকবাল কবীর জাহিদ, সরকারি এম এম কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. আবু তালেব মিয়া, সরকারি সিটি কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক আবু তোরাব মোহাম্মদ হাসানকে সভার পক্ষ থেকে তাঁদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।

রিজেন্ট বোর্ডের সভায় জিনোম সেন্টার নিয়ে একটি প্রামাণ্যচিত্র দেখানো হয়। এ ধরনের আন্তর্জাতিক মানের গবেষণাধর্মী সেন্টার করায় যবিপ্রবির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো: আনোয়ার হোসেনসহ এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান বোর্ডের সদস্যরা। পরবর্তীতে বোর্ডের সদস্যরা বঙ্গবন্ধু একাডেমিক ভবনে স্থাপিত জিনোম সেন্টার পরিদর্শন করেন। 

যবিপ্রবির উপাচার্য ও রিজেন্ট বোর্ডের সভাপতি অধ্যাপক ড. মো: আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন যবিপ্রবির কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক শেখ আবুল হোসেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (মাধ্যমিক-২) জাবেদ আহমেদ, যশোর আঞ্চলিক কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. সিরাজুল ইসলাম, জাহাঙ্গীনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ড. শরীফ এনামুল কবীর, ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হাসপাতাল অ্যান্ড রিসার্চ ইন্সিটিটিউটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা অধ্যাপক ডা. মো. আব্দুর রশীদ, যবিপ্রবির ফিশারিজ অ্যান্ড মেরিন বায়েসায়েন্স বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোঃ আনিছুর রহমান, কেমিকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. বিপ্লব কুমার বিশ্বাস, অণুজীববিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মো: ইকবাল কবীর জাহিদ, সরকারি এম এম কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. আবু তালেব মিয়া, সরকারি সিটি কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক আবু তোরাব মোহাম্মদ হাসান, যবিপ্রবির রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো. আহসান হাবীব প্রমুখ।