banglanewspaper

জ্বালানি তেলের মূ্ল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে ফ্রান্সজুড়ে চলছে সড়ক অবরোধ। আর এই কর্মসূচি চলাকালে দুর্ঘটনায় এক বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছেন। ফ্রান্সের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ক্রিস্তোফ কাস্তানেখ জানান, শনিবার (১৭ নভেম্বর) সড়ক অবরোধ চলাকালে ওই বিক্ষোভকারী একটি গাড়ির ধাক্কায় নিহত হন।

টেলিভিশনে সম্প্রচারিত মন্তব্যে কাস্তানেখ জানান, দক্ষিণপূর্বাঞ্চলীয় স্যাভোয়ায় এক গাড়িচালক যখন দেখেন বিক্ষোভকারীরা সড়ক বন্ধ করে দিচ্ছে, তখন আতঙ্কিত হয়ে তিনি দ্রুত গাড়ি চালিয়ে বের হয়ে যাওয়া চেষ্টা করেন। এ সময় তার গাড়ির সঙ্গে ধাক্কা লেগে এক নারী বিক্ষোভকারী নিহত হন। ওই নারী গাড়িচালক তার কন্যাকে হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছিলেন। এ ঘটনার পর তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

সম্প্রতি ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ জ্বালানি কর বৃদ্ধি করেছেন। এই নিয়ে ক্ষুব্ধ নাগরিকরা তৃণমূল পর্যায়ে জ্বালানির বাড়তি মূল্য বিরোধী আন্দোলন ‘ইয়োলো ভেস্ট’ শুরু করেছেন। ইয়োলে ভেস্টের বিক্ষোভকারীরা সড়ক পথগুলো অবরোধ করার চেষ্টা করে এবং জ্বালানি ডিপোগুলোতে প্রবেশে বাধা দেয়।

আন্দোলনকারীরা বিভিন্ন স্থানে সড়ক অবরোধ করে কার্যত মহাসড়ক অচল করে দিয়েছেন। এর মধ্যে গাড়িচাপায় এক আন্দোলনকারী নিহত ও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। জানা গেছে, গত ১২ মাসে ফ্রান্সে ডিজেলের দাম ২৩ শতাংশ বাড়ানো হয়েছে। দেশটির বেশিরভাগ গাড়িতে ডিজেল ব্যবহার করা হয়ে থাকে। গত দশকের প্রথম দিককার পর এখনই দেশটিতে তেলের দাম সবচেয়ে বেশি।

বিশ্ববাজারে তেলের দাম কমলেও প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সরকার সেখানে ‘পরিষ্কার গাড়ি ও জ্বালানি’ প্রচারাভিযানের অংশ হিসেবে তেলের ওপর হাইড্রোকার্বন ট্যাক্স বাড়িয়েছে। গতকাল ফ্রান্সের প্রায় ২০০০ স্থানে হলুদ জ্যাকেট পরিহিত প্রায় এক লাখ ২০ হাজার বিক্ষোভকারী সড়ক অবরোধ করে। বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, ম্যাক্রোঁ গরীব মানুষকে বর্জন করছেন।