banglanewspaper

ইন্দোনেশিয়ার লায়ন এয়ার বিমান দুর্ঘটনায় নিহত এক যাত্রীর বাগদত্তা একা-একাই তার বিয়ের ছবি তুলে পোস্ট করেছেন ইন্সটাগ্রামে। ইন্টান সায়ারি ও রিও নন্দা প্রাতামার বিয়ে হওয়ার কথা ছিল ১১ নভেম্বর।

কিন্তু, ২৯ অক্টোবর লায়ন এয়ারের বিমানে বাড়ি ফেরার সময় সেটি সমুদ্রে বিধ্বস্ত হলে মারা যান প্রাতামা। তার বাগদত্তা সায়ারি বলেন, তিনি তার হবু বরের শেষ ইচ্ছা পূর্ণ করতে বিয়ের আংটি আর সাদা গাউন পরে ছবি তুলেছেন।

'যদিও কষ্ট প্রকাশ করার ভাষা আমার নেই, তবুও আমি তোমার জন্য হাসছি,' ইন্সটাগ্রামে লেখেন সায়ারি, 'আমি দুঃখ করার বদলে তুমি যেমন বলতে তেমন শক্ত হয়ে আছি।'

সায়ারি জানান, যাওয়ার আগে প্রাতামা মজা করে বলেছিলেন, তিনি যদি সময়মত না ফেরেন তাহলে সায়ারি যেন বিয়ের ছবি তুলে তাকে পাঠিয়ে দেন। জাকার্তা থেকে উড্ডয়নের অল্প কিছু সময় পরে ১৮৯ জন যাত্রী নিয়ে বোয়িং ৭৩৭ বিমানটি সমুদ্রে আছড়ে পড়লে এর সব আরোহী নিহত হয়।

আগে, ইন্সটাগ্রামের কয়েকটি পোস্টে সায়ারি বলেন তিনি প্রাতামাকে ১৩ বছর ধরে চিনতেন। মাধ্যমিক স্কুলে পড়ার সময় তাদের পরিচয় হয়। প্রাতামাই তার 'প্রথম ভালোবাসা'। বিয়ের কয়েক সপ্তাহ আগে তারা জামাকাপড় পছন্দ করেন ও ফটোশুটের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেন।

মেডিকেল ডাক্তার প্রাতামা জাকার্তায় একটি সেমিনারে অংশ নিতে গিয়েছিলেন। যে ফোটোগ্রাফারকে তারা নির্বাচিত করেছিলেন তিনিও কিছু ছবি ইন্সটাগ্রামে পোস্ট করে তাদের গল্পটা লেখেন।

ফটোগ্রাফার জানান, 'প্রাতামা তার বাগদত্তাকে বলেছিলেন, 'আমি ১১ নভেম্বরের মধ্যে না ফিরলেও তুমি আমার পছন্দ করা বিয়ের গাউন পরে ছবি তুলবে। সুন্দর করে মেকআপ করবে, একটা সাদা গোলাপ আনতে বলবে। সুন্দর সুন্দর ছবি তুলে আমার কাছে পাঠিয়ে দিবে।'

জাকার্তা থেকে পাঙ্কাল পিনাঙ্গে যাওয়ার পথে বিমানটি কেন বিধ্বস্ত হয় তা জানা যায়নি।