banglanewspaper

নাজমুল ইসলাম, জৈন্তাপুর (সিলেট) প্রতিনিধি: সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের জৈন্তাপুর হতে জাফলং পর্যন্ত রাস্তা সংস্কারের দাবীতে আগামী ২৪ জুলাই মঙ্গলবার কর্মবিরতী পালনের ডাক দিয়েছে ৫টি পরিবহন শ্রমিক সংগঠনের আঞ্চলিক কমিটি। 

শ্রমিক সংগঠনের সাথে আলাপকালে জানাযায় সিলেট-তামাবিল মহা সড়কের জৈন্তাপুর উপজেলার ফেরীঘাট হতে জাফলং পর্যন্ত রাস্তা চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। সংস্কারের দাবিতে একাধিক বার আন্দোলন করে সড়ক ও জনপথ বিভাগ সংস্কারের উদ্যোগ গ্রহন করছে না। ফলে রাস্তাটির অবস্থা নাজুক পরিস্থিতি ধারন করেছে। এদিকে সড়ক ও জনপথ বিভাগ রাস্তা সংস্কারের নামে নিম্নমানের মাঠি মিশ্রিত বালু, নিম্নমানের ইট ব্যবহার করে সংস্কারের নামে কোটি কোটি টাকা অপচয় করে আসছে।

ঝুকিপূর্ণ অবস্থায় সিলেট তামাবিল রাস্তা দিয়ে গাড়ী চলাচলের কারনে প্রতিদিন দূর্ঘটনার কবলে পড়তে হচ্ছে বিভিন্ন প্রকার যানবাহনের শ্রমিক সাধারণদের। পূর্বঘোষিত কর্মসূচীর অংশ হিসাবে আগামী ২৪ জুলাই মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে ২৫ জুলাই সকাল পর্যন্ত সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের জৈন্তাপুর হইতে জাফলং পর্যন্ত কর্মবিরতী পালনের ডাক দিয়েছে জৈন্তাপুর ট্রাক শ্রমিক আঞ্চলিক শাখা, জৈন্তাপুর পাথর শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন, জাফলং ট্রাক আঞ্চলিক কমিটি, জৈন্তাপুর বাস মালিক শ্রমিক আঞ্চলিক শাখা, ইমা লেগুনা জৈন্তাপুর আঞ্চলিক শাখা, জৈন্তাপুর উপজেলা অটো বাইক শ্রমিক সংগঠন। 

এ বিষয়ে জৈন্তাপুর ট্রাক শ্রমিক আঞ্চলিক শাখার সভাপতি নুরু মিয়া, সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান ও সাংগঠনিক সম্পদক সাইফুল ইসলাম, জাফলং ট্রাক আঞ্চলিক কমিটির সভাপতি ফয়জুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম, বৃহত্তর জৈন্তা পাথর শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রব প্রতিবেদককে জানান দীর্ঘ দিন হতে রাস্তাটি সংস্কারের দাবী জানিয়ে আসছি। কিন্তু সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ রাস্তাটি সংস্কারে কার্যকর প্রদক্ষেপ গ্রহন করছে না। ফলে এ রোড দিয়ে পরিবহন চালাতে গিয়ে আমরা নানা ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে মালিক শ্রমিকের মাধ্যে প্রতিনিয়ত গাড়ী মেরামত নিয়ে বিরোধ দেখা দিচ্ছে এছাড়া প্রতিদিন কোন না কোন স্থানে দূর্ঘটনার শিকার হতে হচ্ছে যাত্রীসহ পরিবহন শ্রমিকরা। অ

কালে মৃত্যুর কূলে ঢলে পড়েছে এবং পঙ্গুত্ব বরন করতে হচ্ছে সহ¯্রাধীক যাত্রী ও শ্রমিকদের। মাঝে মধ্যে স্থানীয় সওজ কর্তৃপক্ষ সংস্কারের নামে সরকারের কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। অনতিবিলম্বে রাস্তাটি স্থায়ী সংস্কারের দাবীতে ৫টি শ্রমিক সংগঠন একত্রিত্ব হয়ে ২৪ ঘন্টা কর্মবিরতী কর্মসূচী পালনের ডাক দেওয়া হয়েছে। আশানুরুপ ফলাফল না আসে তাহলে লাগাতার কর্মসূচী পালনের ঘোষনা দেওয়া হবে।