banglanewspaper

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ আবার বিয়ে করেছেন বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে 'মিথ্যা প্রচার' চালানোর অভিযোগ করেছেন তার জনসংযোগ কর্মকর্তা আব্দুর রহিম।

তিনি জানান, ফেসবুকে কতিপয় লোকজন আছেন, যারা বিনা বিচারে ট্রল করে মানুষের চরিত্র হননের জন্য তৈরি হয়ে থাকেন। এই ছবি দুটি ছড়িয়ে দিয়ে অনেকেই মজা লুটছেন যে এরশাদ নাকি আবার বিয়ে করেছেন।

তিনি আরও জানান, মূল ঘটনা হলো- এরশাদ একটি মেয়েকে ক্লাস ওয়ান থেকে মাস্টার্স পর্যন্ত লেখাপড়া করিয়েছেন। গতকাল সেই মেয়েটির বিয়েতে গিয়েছিলেন তিনি।

পিতার পরিচয় দিয়ে এক হিন্দু মেয়ের বিয়ের যাবতীয় খরচ বহন করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। ওই মেয়ের নিপা রানী। শুধু ব্যয় বহন করেননি, নিজে উপস্থিত থেকে নিপাকে সোনার গহনা পরিয়ে আর্শীবাদ করেন তিনি

শনিবার দিবাগত রাতে রাজধানীর ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে নিপার বিয়ে অনুষ্ঠিত হয়।

জানা গেছে, রাজধানীর তাঁতী বাজারের নিম্নমধ্য বিত্ত পরিবারের মেয়ে নিপা রানী। নিপার জন্মদাতা পিতার নাম নারায়ন কর্মকার। নারায়ন কর্মকারে সঙ্গে এরশাদের সম্পর্ক দীর্ঘদিনের। সে সুবাদে নিপাকে ছোটবেলা থেকেই পিতৃ-স্নেহে বড় করেছেন এরশাদ। নিপাকে পড়াশুনা করিয়েছেন তিনি। একজন পিতা হিসেবে মেয়ের প্রতি যে দায়িত্ব পালন করা দরকার তার সবটুকুই করেছেন এরশাদ। সর্বশেষ শনিবার সোনা গহনা থেকে শুরু করে বিয়ের যাবতীয় খরচ বহন করে এরশাদ তার পালিত কন্যাকে স্বামীর ঘরে পাঠিয়ে দেন।

বিয়ের সময় এরশাদের সঙ্গে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি, সুনীল শুভ রায়, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক সম্পাদক সুজন দে, নিপার জন্মদাতা পিতা নারায়ন কর্মকারসহ নিপার কয়েক শতাধিক আত্বীয়-স্বজন উপস্থিত ছিলেন।