banglanewspaper

ওমর ফারুক, বান্দরবান প্রতিনিধি: বান্দরবানে প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় কর্মরত সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের সাথে মত বিনিময় সভা করেছেন নবনিযুক্ত জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন।

মঙ্গলবার (১৩মার্চ) জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় জেলার সার্বিক বিষয় নিয়ে বক্তব্য দেন সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা।

জেলা প্রশাসক মো. আসলাম হোসেনের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন আঞ্চলিক পরিষদ সদস্য শফিকুর রহমান, কাজল কান্তি দাশ, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মো. ইসলাম বেবী, জেলা পরিষদ সদস্য ক্যা সা প্রু, লক্ষীপদ দাশ, জেলা আওয়ামী লীগের অর্থ সম্পদক ও জেলা কর বাহাদুর মাহাবুবুর রহমান, হোটেল-মোটেল মালিক সমিতির সভাপতি অমল কান্তি দাশ, জেলা পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পদক সুব্রত দাশ ঝন্টু, বান্দরবান প্রেস ক্লাবের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বাচ্চু, লামা উপজেলার প্রাক্তন উপজেলা চেয়ারম্যান মো. ইসমাইল, এড. আবুল কালাম, বাংলাদেশ টেলিভিশনের বান্দরবান জেলা প্রতিনিধি মনিরুল ইসলাম মনু প্রমুখ।

সভায় অনান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো: শফিউল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ শফিউল আলম, জেলা প্রশাসনের নেজারত ডেপুটি ক্যালেক্টর (এনডিসি) মো. আলী নুর খান, বাংলাদেশের খবর পত্রিকার বান্দরবান প্রতিনিধি মো. এনামুল হক কাশেমী, দৈনিক জনতা প্রতিনিধি এমএ হাকিম চৌধুরী, প্রথম আলো প্রতিনিধি বুদ্ধজ্যোতি চাকমা, মাছরাঙ্গা টেলিভিশনের প্রতিনিধি কৌশিক দাশ, একুশে টেলিভিশনের প্রতিনিধি মোঃ নজরুল ইসলাম টিটু, চ্যানেল আই প্রতিনিধি মোঃ ইসমাইল হাসান, মোহনা টেলিভিশনের প্রতিনিধি রাহুল বড়ুয়া ছোটন, দীপ্ত টিভি প্রতিনিধি আবুল বাশার নয়নসহ অন্যান্যরা।

সভায় সুব্রত দাশ বলেন, “পর্যটন জেলা বান্দরবানের বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগ গ্রাহকদের হয়রানি করছেন। ব্যবহারের চেয়েও বেশি বিল প্রদান করেন”। তাঁর এ বক্তব্যে আঞ্চলিক পরিষদ সদস্য শফিকুর রহমান ও পৌর মেয়র ইসলাম বেবী সমর্থন করেন এবং জেলা প্রশাসককে ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ জানান।

সুব্রত আরো বলেন, “জেলায় চরম পানির সংকট চলছে, পানির অভাবে হোটেল গুলোতে ময়লা খারার পরিবেশন করা হচ্ছে”।

এ বিষয়ে তিনি জেলা প্রশাসকের দৃষ্টি আকর্ষণ করলে জবাবে জেলা পরিষদ সদস্য ক্যা সা প্রু বলেন, ৩০০ সংযোগ বেড়ে এখন সাড়ে তিন হাজার হয়েছে। তাই পৌরবাসীর পানির সমস্যা হচ্ছে। তবে তিনি পানি সংকট রুধে কোন পদক্ষেপের কথা সভায় উপস্থাপন করেনি। ১১মার্চ (রবিবার) জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী উন্নয়ণ কাজে স্থানীয় পাথর ব্যবহার বন্ধের নির্দেশ দিলেও দু’দিনের মাথায় আজকের সভায় লামা উপজেলার প্রাক্তন উপজেলা চেয়ারম্যান মো. ইসমাইল বান্দরবানের পাথর রপ্তানী করে রাজস্ব আদায়ের কথা বলেন।

তবে বিএনকেএস সভানেত্রী হ্লা সিং নু মার্মা তার বিরোধীতা করে বলেন, যেখানে পানির উৎস শুকিয়ে যাচ্ছে সেখানে পাথর উত্তোলণ ও রপ্তানী বন্ধে জেলা প্রশাসকের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। প্রসঙ্গত, আসলাম হোসেন চলতি মাসের ৭মার্চ বান্দরবানের ১৮তম জেলা প্রশাসক হিসাবে যোগদান করেন।