banglanewspaper

‘ফিফটি শেডস অফ গ্রে’-র কাহিনি আবর্তিত হয়েছিল ই এল জেমস-এর একই নামের উপন্যাসকে কেন্দ্র করে। প্রেম থেকে যৌনতার ভয়াবহ অ্যাডভেঞ্চারে পরিণতি পাওয়া এক সম্পর্ককে নিয়েই এই কাহিনি।

২০১৫-এ তেমন জমেনি। কিন্তু তাই বলে তো আর সিকোয়েল ফেলে রাখা যায় না! ‘ফিফটি শেডস অফ গ্রে’-র পরবর্তী পর্ব ‘ফিফটি শেডস ডার্কার’-এর রিলিজ ডেট ২০১৭-এর ফেব্রুয়ারি। এর মধ্যেই ভাইরাল হয়ে গিয়েছে এই ছবির ট্রেলার। আগের পর্বের পরিচালক ছিলেন স্যাম টেলর-জনসন, এবারে তাঁর স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন জেমস ফোলি। ফোলির ঝুলিতে রয়েছে ‘পারফেক্ট স্ট্রেঞ্জার’-এর মতো জমাটি থ্রিলার। কিন্তু, ক্রিটিকরা ইতিমধ্যেই নাক কুঁচকে বসেছেন। তাঁদের মতে, গেলবার যা হয়নি, তা কি এবারে সম্ভব হবে?

‘ফিফটি শেডস অফ গ্রে’-র কাহিনি আবর্তিত হয়েছিল ই এল জেমস-এর একই নামের উপন্যাসকে কেন্দ্র করে। প্রেম থেকে যৌনতার ভয়াবহ অ্যাডভেঞ্চারে পরিণতি পাওয়া এক সম্পর্ককে নিয়েই এই কাহিনি। ধর্ষ-মর্ষ কামের পারফেক্ট ব্লেন্ডিং নিয়ে সরব হয়েছিলেন মনোবিদরাও। তাঁরা খোলাখুলি জানিয়েছিলেন, ধর্ষকামী ব্যক্তিরা তাঁদের পার্টনার হিসেবে মর্ষকামীদের মেনে নিতেই পারেন না। তাঁরা বলপ্রয়োগের যৌনতায় বিশ্বাসী। আর বিপরীতে যদি এমন কেউ থাকেন, যিনি ডমিনেটেড হতেই চান, তা হলে খেলা জমে না। বলপ্রয়োগের আর্টটাই নাকি মাঠে মারা যায়। সেই ফর্মুলায় হেঁটেই সর্বনাশ হয়েছিল গেলবারের ছবির। এবারে তাই সম্ভবত জেমস-এর কাহিনির উপরে খোদকারি করে ‘ট্যুইস্ট’ আনতে চলেছেন পরিচালক।

ইতিমধ্যে প্রকাশিত ট্রেলারে যুক্ত হয়েছে জায়ান মালিক-টেলর সুইফ্টের গান। তার উপরে পরিচালক গাইতে শুরু করেছেন, উপন্যাসের সঙ্গে ছবির পার্থক্য বিপুল। এবং ছবিতে থাকছে মাতা ঘুরিয়ে দেওয়ার মতো চমক। এখানেই শেষ নয়। ‘ফিফটি শেডস ডার্কার’-এ কোনও রিস্ক নিতে রাজি নন পরিচালক ফোলি। কাস্টিংয়ে রয়েছেন কিম বেসিঞ্জারের মতো লাস্যময়ী। বয়স ৬৩ হলেও কিম আজও মাথা ঘুরিয়ে দিতে পারেন সদ্য-যুবাদের। দেখা যাক, প্রেম-চাবুক-যৌনতার এই নতুন মিশেল কোনও ম্যজিক দেখাতে পারে কি না।