banglanewspaper

মনির হোসেন জীবন, নিজস্ব প্রতিনিধি: যৌতুকের দাবীতে স্বামীর ভাড়া বাসায় গৃহবধূ স্বর্ণালীকে পিটিয়ে ও শ্বাসরোধে হত্যা করে লাশ ঘরের ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে রাখে পাষন্ড স্বামী আকবর আলী ও শ্বশুড় বাড়ীর লোকজন। যৌতুকের বলি হল একটি তাজা প্রাণ।

স্বর্ণালী হত্যার খবরে ফোঁসে উঠেছে নিহত স্বর্ণালীর পরিবার ও এলাকাবাসি। প্রতিবাদে আজ সোমবার দুপুরে কবিরপুর-বাইদগাঁও আঞ্চলিক সড়কের বাইদগাঁও বাজারে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করে নিহত স্বর্ণালীর পরিবার, এলাকাবাসি ও স্থানীয় কয়েকটি স্কুলের শিক্ষার্থীরা।

মানববন্ধনে এসময় বাইদগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়, বাইদগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাইদগাঁও আইডিয়াল পাবলিক স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষার্থী এবং এলাকাবাসি বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করে হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত সবাইকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান।  

মানববন্ধন শেষে স্থানীয় যুবক আব্দুল্লাহ-আল-মামুন এর সঞ্চালনায় এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বক্তব্য রাখেন শিমুলিয়া ইউনিয়ন আ’লীগ সভাপতি মো. রকিবুল ইসলাম বাবুল, বাইদগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি সামান উদ্দিন মুন্সী, স্থানীয় ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন, স্বর্ণালীর বাবা সুরুজ মিয়া, চাচা আক্তার হোসেন, সাইফুল ইসলাম, সেলিম হোসেন, লুৎফর রহমান প্রমূখ।

মানববন্ধনে এসময় বক্তারা বলেন, অবিলম্বে হত্যার সাথে জড়িত সবাইকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করার জন্য প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেন। সেই সাথে স্বর্ণালীর ছোট্ট শিশু আলফি (৭) কে যেন উদ্ধার করা হয়। 

উল্লেখ্য, গত ১০ মার্চ সাভারের শাহীবাগ এলাকায় ৫ লাখ টাকা যৌতুকের দাবীতে স্বামীর ভাড়া বাসায় স্বর্ণালীকে পিটিয়ে ও স্বাসরোধে হত্যা করে লাশ ঘরের ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে রাখে স্বামী ও শ্বশুড় বাড়ীর লোকজন। নিহতের পরিবারের লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঘটনায় নিহতের বাবা সুরুজ মিয়া বাদী হয়ে সাভার মডেল থানায় স্বর্ণালীর স্বামী আকবর হোসেনকে প্রধান করে ৫ জনের নাম উল্লেখ করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-২২।